বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বদের উপর হামলার ঘটনায় তৃণমূলী দুষ্কৃতীদের গাড়ি দিয়ে পিষে মারার হুশিয়ারি সায়ন্তনের

0
323

বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বদের উপর হামলার ঘটনায় তৃণমূলী দুষ্কৃতীদের গাড়ি দিয়ে পিষে মারার হুশিয়ারি সায়ন্তনের, দিলীপ কে পাশে বসিয়ে আইপিএস অফিসারদেরও দিলেন প্যারেড করানোর হুমকি

পিন্টু কুন্ডু , বালুরঘাট, ১৪ ডিসেম্বর––– জেপি নাড্ডা সহ বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের উপর হামলার ঘটনায় তৃণমূল নেতাদের চরম হুশিয়ারি দিলেন সায়ন্তন বসু। নাম না করে অনুব্রত মন্ডল, আরাবুল সহ একাধিক নেতাকে গাড়ি দিয়ে পিষে মারারও দিলেন হুশিয়ারি। সোমবার বালুরঘাটের পতিরাম হাইস্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত প্রকাশ্য সভা থেকে তৃণমূল নেতাদের কড়া হুশিয়ারি দিয়েছেন বিজেপির এই নেতা। শুধু তাই নয় রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে পাশে বসিয়ে রাজ্যের আইপিএস ও আই এ এস অফিসারদের  দিল্লীতে নিয়ে গিয়ে প্যারেড করানোরও হুমকি দিলেন বিজেপির এই রাজ্য নেতা। তিনি বলেন,  দক্ষিণবঙ্গের আই.জি’কে যে ভাবে দিল্লী পাঠানো হয়েছে একই কায়দায় আরও কিছু আইপিএস অফিসারকে দিল্লী পাঠানো হবে । এখন দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলা শাসক এবং এসপি তাঁদের সাংসদ, সভাপতিদের সাথে দেখা করছেন না, ৩ মাস পর কোনও রেয়াত করা হবে না । সময় এলে তাঁদের প্রতিও একই ব্যবহার করা হবে বলেও মন্তব্য করেন সায়ন্তন । জেপি নাড্ডা, কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র উপর হামলা প্রসঙ্গে তৃণমূলী দুষ্কৃতীদের চরম হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সম্পাদক । প্রকাশ্য সভায় দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, বিজেপি ক্ষমতায় এলে সৈকত মোল্লাকে খুজে পাওয়া যাবে না । উত্তর প্রদেশে এখন অনেক বড় বড় দুষ্কৃতীদের খুঁজে পাওয়া যায় না । ওখানে অনেক পথ দুর্ঘটনাও হয় । এখানেও হবে । বীরভূম, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার কোনও দুস্কৃতিকেই আর খুঁজে পাওয়া যাবে না । 


এদিন সায়ন্তন বসু বলেন, পরিবর্তনের বাতাবরণ তৈরী হয়েছে । আগে যারা পরিবর্তন চেয়েছে এখন তারাও পরিত্রাণ চাইছে । নরেন্দ্র মোদীর সরকার সাধারণ মানুষকে বিনে পয়সায় গ্যাস দিয়েছে, ঘর দিয়েছে । বিজেপি সরকার এলে প্রচুর উন্নয়ন হবে । এদিনের সভায় বালুরঘাটের পতিরাম ফুটবল ময়দানে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে পাশে বসিয়ে আগা গোড়া রাজ্য সরকারকে চড়া ভাষায় আক্রমণ করেন সায়ন্তন বসু । হাজার হাজার কর্মীসমর্থকদের উপস্থিতিতে এদিন বক্তব্য রাখেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও । জেলায় একের পর এক মহিলা ধর্ষণ এবং খুন নিয়ে প্রশাসনিক নিষ্ক্রিয়তাকেই দায়ী করেন দিলীপ ঘোষ । সরকারি প্রকল্পে তৃণমূলী নেতাদের কাটমানি খাওয়া নিয়েও সুড় চড়ান বিজেপির রাজ্য সভাপতি । তিনি বলেন, ডিসেম্বরের শীতে যখন অনেকে কাপছে তখন তৃণমূল নেতারা ঘামছে। জানুয়ারী পড়লে কাটমানি খাওয়া নেতারা আরো ঘামতে থাকবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। এদিনের সভা থেকে কুশমন্ডিতে খুন হওয়া বিজেপি কর্মীর পরিবারের হাতে ৫ লক্ষ টাকার চেক তুলে দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ । এছাড়াও বিভিন্ন ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ বিজেপি কর্মী সমর্থকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে ওই সভা মঞ্চ থেকে । এদিনের ওই মঞ্চে দল বদল কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে বেশকিছু নেতা কর্মীও অন্যান্য দল ছেড়ে বিজেপির পতাকা তুলে নিয়েছেন । 
বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার তার শারীরিক অসুস্থতার কারণে এদিনের সভায় অনুপস্থিত থাকলেও প্রচুর কর্মীসমর্থক ভীড় জমান প্রকাশ্য কর্মসূচীতে । যেখানে রাজ্য নেতারা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিজেপির সভাপতি বিনয় বর্মন, রাজ্য নেতা রথীন্দ্রনাথ বোস সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা । 
বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, রাজ্য জুড়েই পরিবর্তনের হাওয়া বইছে । পরিবর্তন এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা । আগামীতে বিজেপি একক ভাবে ক্ষমতায় আসবে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here