মানসিক ভারসাম্যহীন যুবতী কে রাতের অন্ধকারে ধর্ষণ করে তাকে খুন করে জমিতে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ।

0
40

মালদা:- এক পৈশাচিক ঘটনার শিকার মানসিক ভারসাম্যহীন এক যুবতী। রাতের অন্ধকারে ধর্ষণ করে তাকে খুন করে জমিতে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ। বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে ধানের জমিতে ওই যুবতীর অর্ধনগ্ন মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়ায়। ঘটনাটি ঘটেছে গাজোলের একলাখি এলাকার পাঁচ কলমা গ্রামে।বাড়ি থেকে প্রায় শ’দেড়েক মিটার দূরে একটি ধানের জমিতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ওই কিশোরীর দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। ঘটনার জেরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে গাজোল থানার পুলিশ। দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় গাজোল গ্রামীণ হাসপাতালে।গাজোল থানার আইসি সহ জেলার উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিকরা তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছান।
পরিবার সূত্রে জানা যায় ওই যুবতীর নাম চন্দনা মন্ডল(২৬)। ছোট থেকেই মানসিক ভারসাম্যহীন। গতকাল রাতে দাদার বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয় কিন্তু এদিন সকাল হয়ে যাওয়ার পর বাড়ি ফিরে না আসায় খোঁজাখুঁজি শুরু করেন তারা। এরইমধ্যে জানা যায় বাড়ি থেকে সামান্য দূরে ধানের জমিতে একটি মেয়ের মৃতদেহ পড়ে আছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে দেখতে পান দেহটি চন্দনার। দেহের নিম্নাংশের পোশাক খোলা অবস্থায় ছিল। হাত এবং পা ছিল বাঁধা অবস্থায়। পরিবার এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের অনুমান সম্ভবত ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে ওই যুবতীকে।
খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন গাজোল থানার আইসি রণবীর কুমার বাগ সহ অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকরা। মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় গাজোল গ্রামীণ হাসপাতালে। দুপুর নাগাদ ঘটনাস্থলে আসেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অমিত কুমার শা, ডিএসপি (আইন শৃঙ্খলা) আজাহার উদ্দিন। সবদিক বিবেচনা করে গুরুত্ব দিয়েই ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ। তবে পুলিশি তদন্তের কাজে ব্যস্ত থাকায় পরিবারের লোকজনের পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।প্রাথমিকভাবে তদন্ত শেষ হওয়ার পর সম্ভবত বিকেলের দিকে গাজোল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করবে পরিবার। গোটা ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় রয়েছে তীব্র চাঞ্চল্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here