ভোটে লড়ছেন না বিশ্বনাথ। টানা ৪৫ বছর পর নির্বাচনে না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত আর এস পির বিধায়কের

0
179

পিন্টু কুন্ডু , বালুরঘাট, ২৫ ফেব্রুয়ারি—ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না বিশ্বনাথ চৌধুরী। টানা ৪৫ বছর পর নির্বাচনে না লড়ার সিদ্ধান্ত আর এস পির অন্যতম হেভিওয়েট নেতা তথা বালুরঘাটের বিধায়কের। নতুন প্রজন্মের জোয়ারে আর এস পির ২০২১ শেও সেই ভরসা পুরোনারাই। যাকে ঘিরে রীতিমতো আলোড়ন পড়েছে গোটা দক্ষিন দিনাজপুরে। বিরোধী বিজেপি-তৃনমুলের নতুন প্রজন্মের মাতামাতিতেই কি বিশ্বনাথ বাবুর এমন সিদ্ধান্ত উঠেছে সেই প্রশ্নও। যদিও শারীরিক অসুস্থতা কে সামনে এনেই নির্বাচনে না দাড়ানোর কথা স্পষ্ট ভাবে ব্যক্ত করেছেন আর এস পির রাজ্যনেতা বিশ্বনাথ চৌধুরী। 

বালুরঘাট বিধানসভা আসন থেকে টানা  আট বারের জয়ী বিধায়ক বিশ্বনাথ চৌধুরী। আর এস পি দলের হয়ে নয় বার প্রার্থী হয়ে মাত্র একবারই ২০১১ সালে পরিবর্তনের হাওয়ায় হার স্বীকার করতে হয়েছিল আর এস পির এই হেভিওয়েট নেতাকে। ২০২১ এর নির্বাচনের আগে দলীয় বৈঠক ডেকে আগেভাগেই আচমকা নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন। যে খবর সামনে আসতেই জেলা জুড়ে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা। তবে কি বিজেপি ও তৃণমূলের যুব ব্রিগেডের কাছে হার স্বীকারের ভয়েই নিজেকে গুটিয়ে নিলেন আর এস পির এই নেতা? তিনি না দাড়ালে আর এস পির নতুন মুখই বা কে? এমন সব প্রশ্নে সরব হয়ে উঠেছে গোটা দক্ষিন দিনাজপুর। যদিও দলীয় সূত্রে খবর বুধবার আর এস পির দলীয় এক বৈঠকে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে বালুরঘাট আসন থেকে নাম উঠে এসেছে সুচেতা বিশ্বাসের। যাকে ঘিরেও দলের অন্দরে তৈরি হয়েছে ক্ষোভের সঞ্চার বলেও দলীয় সুত্রের খবর। নতুন প্রজন্মের এই ভরা জোয়ারে কেন পুরোনো সেই মুখগুলিকেই বাছা হচ্ছে তা নিয়েও শুরু হয়েছে জোর গুঞ্জন। যদিও সেসবকে আমল দিতে চান নি আর এস পির রাজ্য সম্পাদক বিশ্বনাথ চৌধুরী। 
        বিশ্বনাথ চৌধুরী জানিয়েছেন, বয়স জনিত কারণের পাশাপাশি দলের শীর্ষ পদে রয়েছেন তিনি। যে কারণে এবারে বালুরঘাট আসন থেকে লড়ছেন না তিনি। দলের প্রার্থী তাদের ঠিক করা হয়ে গেছে, তবে তা এখন প্রকাশ করতে পারবেন না। পুরোনো দের উপরই দল বেশি ভরসা করে, কেননা দীর্ঘ লড়াই আন্দোলনে পুরোনোরাই থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here