সাবডিভিশনাল রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন তরফে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করা হল, সম্মান জানানো হল বিশিষ্টজনদের।

0
196

 

শীতল চক্রবর্তী গঙ্গারামপুর 21 ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ দিনাজপুর :- দ্বিতীয় বর্ষে সাংবাদিকদের সংগঠনের তরফে 21 ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের দিনে সমাজের বিশিষ্টজনদের দিয়ে এই দিনটি পালন করা হল। দক্ষিণ দিনাজপুরের জেলার সাব ডিভিশনাল রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন তরফে প্রভাত ফেরী করে শহর পরিক্রমার স্থানীয় গঙ্গারামপুর মিলনে ক্লাবে অনুষ্ঠান করে শহীদ বেদীতে মাল্যদান, শহীদদের স্মৃতির বিভিন্ন ধরনের গান, শুভ বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আইসি, স্বাধীনতা সংগ্রামী তথা প্রাক্তন শিক্ষক, বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের পাশাপাশি কবি ও সাহিত্যিকরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকেই বিশিষ্টজনদের ক্লাবের তরফে সম্মান জানানো হয়। এমন অনুষ্ঠানে জনসাধারণের উৎসাহ ছিল চোখে পড়ার মতো। 

 দক্ষিণ দিনাজপুর জেলাতে 2015 সালে নতুন করে গঙ্গারামপুর শহর থেকেই সাবডিভিশনাল রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন নামে বিরাট আকারের সাংবাদিকদের সংগঠন তৈরি হয়। গঙ্গারামপুর হাইরোডের সবজি মার্কেটের দোতালায় সাংবাদিকদের সংগঠনের তরফ সে ক্লাব ঘর তৈরি করা হয়েছে। যা ইতিমধ্যেই উদ্বোধন হয়েছে গত 31 ডিসেম্বর 2020 সালে। জেলার মধ্যে উল্লেখযোগ্য সাংবাদিকদের এই ক্লাবে জেলার আটটি ব্লক এর পাশাপাশি তিনটি পুরসভা এলাকা থেকে বিভিন্ন ধরনের দৈনিক টিভি চ্যানেল, পত্রিকা, পাক্ষিক পত্রিকা র সাংবাদিকদের পাশাপাশি কবি-সাহিত্যিকদের নিয়ে প্রায় 50 এর উপরে সদস্য সংখ্যা রয়েছে । এতদিন ধরে শহর এলাকায় মধ্যে 21 ফেব্রুয়ারি মত একটি গুরুত্বপূর্ণ দিনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন হত না বললেই চলে। সাংবাদিকদের সংগঠনের তরফে ক্লাব সদস্য কবি ও সাহিত্যিকদের সঙ্গে নিয়ে এমন একটি কর্মসূচি পালন করার সিদ্ধান্ত নেন গত বছর থেকে। 

   আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি তোমায় ভুলতে পারি। হাজার 1952 সালে রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই এই দাবি আদায়ের সংগ্রামে শহীদদের আত্ম বলিদান এর জন্য বাংলা ভাষা মাতৃভাষায় পরিণত হয়। হাজার 1999 সালে জাতিসংঘ এই দিনটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। 

   আমরা বাঙালি তাই সেদিনের শহীদদের স্মৃতি কে সামনে রেখে রবিবার এমন একটি দিনে গঙ্গারামপুর থানার আইসি বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র-ছাত্রী শিক্ষক-শিক্ষিকা সাংবাদিকদের সংগঠনের সভাপতি সম্পাদক সদস্য কবি ও সাহিত্যিকদের নিয়ে বিরাট প্রভাতফেরী বের করা হয়। চলে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান ও। যা গঙ্গারামপুর রবীন্দ্র ভবন থেকে থানা রোড বড় বাজার বাস স্ট্যান্ড হাইরোড সহ একাধিক জায়গায় ঘুরে আবার মিলনে ক্লাবে এসে জড়ো হয়। এর পরেই উপস্থিত গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু কুমার কুন্ডু, সাবডিভিশনাল রিপোর্টারস এসোসিয়েশন সভাপতি-সম্পাদক শীতল চক্রবর্তী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বিপ্লব হালদার, সাংবাদিক অমল দাস, নারায়ন বসাক, বাবায় সূত্রধর, বিশিষ্ট সাহিত্যিক সুকুমার সরকার, বাপ্পাদিত্য দে, গৌতম চক্রবর্তী, অজয় ঘোষ, অধ্যাপক নিলজ্ব রায়, প্রাক্তন অধ্যাপক শ্যামল ঘোষ, শিক্ষক পার্থ সরকার, দিব্যেন্দু সরকার, জ্যোতির্ময় রায়, রাহুল সরকার, ব্যবসায়ী কমলেশ ফৌজদার সহ উপস্থিত বিশিষ্টজনেরা শহীদ বেদীতে মাল্যদান করেন। শহীদ স্মৃতির উদ্দেশ্যে বহু দেশাত্মবোধক গান গাওয়া হয়। সম্মান জানানো হয় বিশিষ্টজনদের।

 গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু কুমার কুন্ডু জানিয়েছেন সাংবাদিকদের সংগঠনের তরফে এমন অনুষ্ঠান সত্যি খুবই ভালো উদ্যোগ। গতবছর এসেছিলাম এবছর এসেছি। আগামী দিনে এমন অনুষ্ঠান হবে বলে আমি আশাবাদী।

 বিশিষ্ট সাহিত্যিক কথা সাবডিভিশনাল রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সদস্য বঙ্গরত্ন পুরস্কারপ্রাপ্ত সাহিত্যিক সুকুমার সরকার 21 ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের উপরে বিস্তারিত ভাবে বক্তব্য রেখে জানিয়েছেন, এমন অনুষ্ঠান সমাজে অন্যরকম মাত্রা দেবে। যা গত বছরের মতো এ বছরও পালন করা হলো সকলের সহযোগিতায়। 

 এ বিষয়ে সাবডিভিশনাল রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন সম্পাদক তথা সাংবাদিক শীতল চক্রবর্তী জানিয়েছেন, সকলের মিলিত প্রচেষ্টায় সাবডিভিশনাল রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন তরফে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিনটি পালন করা হলো । এমন অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকেই বিশিষ্ট কবি সাহিত্যিকদের পরিষ্কার করা হয়।

 এদিন এমন অনুষ্ঠানের সকল বিশিষ্টজনদের উপস্থিতিতে এদিনের অনুষ্ঠান অন্যমাত্রা পেয়েছিল। ভিড় হয়েছিল ভালোই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here