বিজেপির ডাকা বনধকে ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা কালিয়াগঞ্জ শহরে

0
268

এক গৃহবধূকে ধর্ষন করে খুন করার প্রতিবাদে দুস্কৃতীদের গ্রেফতারের দাবিতে মঙ্গলবার কালিয়াগঞ্জ ব্লক বনধের ডাক দেয় বিজেপি। বিজেপির ডাকা এই বনধকে ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয় কালিয়াগঞ্জ শহরে। বনধের সমর্থনে মিছিল ও জোর করে বনধ পালন করার জন্য বেশ কয়েকজন বিজেপি নেতা কর্মী সমর্থককে গ্রেফতার করে কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশ। পুলিশের সাথে বিজেপির বনধ সমর্থকদের মধ্যে ধস্তাধস্তিও হয়। বনধে দোকানপাট বন্ধ থাকলেও রায়গঞ্জ বালুরঘাট রাজ্য সড়ক খোলা আছে। শহর জুড়ে ব্যপক পুলিশী টহলদারি ও জনজীবন স্বাভানিক রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গত ৪ নভেম্বর রাতে কালিয়াগঞ্জ থানার নসিরহাট এলাকায় জয়ন্তী দাস নামে এক গৃহবধূর গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছিল।মৃতার আত্মীয়ের অভিযোগ, মৃতার স্বামী বাড়িতে মদের আসর বসিয়ে তাকে গনধর্ষন করে হত্যা করে ঝুলিয়ে দিয়েছে। এই অভিযোগে মৃতার পরিবারের লোকেরা স্বামী উজ্বল সরকার এবং শ্বাশুড়ি হিমা সরকারকে মারধর করে। এছাড়া তাদের বাড়ি ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবি বিজেপি সমর্থক বালুরঘাট রায়গঞ্জ রাস্তা অবরোধ করেছিল।পুলিশ গিয়ে গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে দিয়েছিল। পুলিশ এই ঘটনায় মৃত্যার স্বামী এবং শ্বাশুড়িকে গ্রেপ্তার করেছিল। কিন্তু পুলিশের হেফাজতে থাকা তৃনমূল আশ্রিত ওই দুজন পালিয়ে যায় বলে অভিযোগ তোলে বিজেপি। যদিও ময়নাতদন্তের রিপোর্টেও আত্মহত্যা বলে পুলিশ জানিয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বিজেপি আন্দোলনে নামে। পুলিশের নিস্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে কালিয়াগঞ্জের বিবেকানন্দ মোড়ে গত চারদিন চারদিনের ধর্না অবস্থান বিক্ষোভও করে বিজেপি । কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চোধুরী মৃতার পরিবারকে সমবেদনা জানাতেও গিয়েছিলেন। আজ মঙ্গলবার তৃণমূল আশ্রিত দুস্কৃতীদের গ্রেফতারের দাবিতে কালিয়াগঞ্জ ব্লক ১২ ঘন্টার বনধের ডাক দিয়েছে বিজেপি। বনধে জনজীবন প্রায় স্বাভাবিক আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here