সুজাপুরের বিস্ফোরণস্থল পরিদর্শন করেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা

0
230

মালদা:——-গতকাল রাতেই সুজাপুরের বিস্ফোরণস্থল পরিদর্শন করেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। ঘটনাস্থল থেকে সংগ্রহ করেন নমুনা। কথা বলেন পুলিশ আধিকারিকদের সাথে।আজ সকালে আবার ঘটনাস্থলে যাওয়ার কথা রয়েছে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের।

মালদার কালিয়াচক থানার সুজাপুরে প্ল্যাসটিক কারখানায় বিস্ফোরণ ঘিরে ধোঁয়াশা রয়েছে।গতকাল রাতে ফরেন্সিক টিম ঘটনাস্থলে নমুনা সংগ্রহ করেন। আজও দ্বিতীয় দফায় নমুনা সংগ্রহ করতে ঘটনাস্থলে আসেন।চিত্রাক্ষ সরকারের নেতৃত্বে দুইজনের ফরেন্সিকের প্রতিনিধি প্রায় তিন ঘন্টার বেশী সময় ধরে ঘটনাস্থলের নমুন সংগ্রহ করেন।বিস্ফোরণে ভেঙে যাওয়া মেশিনের অংশ পরীক্ষা করতে গিয়ে পুনরায় বিস্ফোরণ ঘটে।আতঙ্ক ছঢ়ড়ায় এলাকায়। ফরেন্সিক আধিকারিক চিত্রাক্ষ সরকার জানান এখনি স্পষ্ট কোন তথ্য পাওয়া যায় নি। মেশিনের কারণে বিস্ফোরণ হয়েছে এমন তথ্য বলা সম্ভব নয়। নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে মিয়ে পরীক্ষা করার পর বিস্ফোরণের কারণ জানা যাবে। ভগ্ন হয়ে যাওয়া মোটরের অংশ ল্যাবে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। চিত্রাক্ষবাবু জানান এই এলাকায় অন্য কারখানাতেও মেশিন পরীক্ষা করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে প্রায় কুড়িটি প্ল্যাসটিক কারখানা রয়েছে।মোথাবাড়ি বিধানসভার বিধায়ক ততা তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী বলেন কারখানাগুলি কিভাবে চলে সে তথ্য জামা দরকার। কারখানা আইন মেনে এইসব কারখানা চলছে কিনা তারও খোঁজ প্রয়োজন। তিনি অভিযোগ করেন কারখানা আইন মেনে এইসব কারখানা চলছিল না । যার কারণ খতিয়ে দেখা উচিত। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে এই এলাকার কঅরখানাগুলিতে ব্যবহৃত মেশিন হ্যান্ড মেড। অন্যদিকে উত্তর মালদার বিজেপির সাংসদ তথা নেতা খগেন মুর্মু অভিযোগ করেন ৭২ঘন্টার পরও পুলিশ কোন মামলা করে নি। ফলে ঘটনার পিছনে তথ্য গোপণ করছেন পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here